Saturday, November 17, 2018

সন্তানের প্রতি লোকমান হাকীমের ১১ উপদেশ (পর্ব ৭/৮) ৭ম উপদেশ





সন্তানের প্রতি লোকমান হাকীমের ১১ উপদেশ (পর্ব ৭/৮)সপ্তম উপদেশ:
আল্লাহ বলেন- 
وَاصْبِرْ عَلَى مَا أَصَابَكَ
যে তোমাকে কষ্ট দেয় তার উপর তুমি ধৈর্য ধারণ কর।”
আয়াত দ্বারা স্পষ্ট হয় যে, যারা ভালো কাজের আদেশ দেবে এবং খারাপ ও মন্দ কাজ হতে মানুষকে নিষেধ করবে তাকে অবশ্যই কষ্টের সম্মুখীন হতে হবে এবং অগ্নিপরীক্ষা দিতে হবে। যখন পরীক্ষার সম্মুখীন হবে তখন তোমার করণীয় হল, ধৈর্যধারণ করা ও ধৈর্যের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া।
রাসূল সা. বলেন,
«المؤمن الذي يخالط الناس ويصبر على أذاهم ، أفضل من المؤمن الذي لا يخالط الناس ولا يصبر على أذاهم».
যে ঈমানদার মানুষের সাথে উঠা-বসা ও লেনদেন করে এবং তারা যে সব কষ্ট দেয়. তার উপর ধৈর্য ধারণ করে, সে— যে মুমিন মানুষের সাথে উঠা-বসা বা লেনদেন করে না এবং কোন কষ্ট বা পরীক্ষার সম্মুখীন হয় না তার থেকে উত্তম।”
إِنَّ ذَلِكَ مِنْ عَزْمِ الْأُمُورِ
অর্থ, “নিশ্চয় এগুলো অন্যতম সংকল্পের কাজ।” –সূরা লোকমান: ১৭
অর্থাৎ, মানুষ তোমাকে যে কষ্ট দেয়, তার উপর ধৈর্য ধারণ করা অন্যতম দৃঢ় প্রত্যয়ের কাজ।
অষ্টম উপদেশ:
وَلَا تُصَعِّرْ خَدَّكَ لِلنَّاسِ
অর্থ, “আর তুমি মানুষের দিক থেকে তোমার মুখ ফিরিয়ে নিয়ো না।”
আল্লামা ইবনে কাসীর রহ. বলেন, ‘যখন তুমি কথা বল অথবা তোমার সাথে মানুষ কথা বলে, তখন তুমি মানুষকে ঘৃণা করে অথবা তাদের উপর অহংকার করে, তাদের থেকে মুখ ফিরিয়ে রাখবে না। তাদের সাথে হাস্যোজ্জ্বল হয়ে কথা বলবে। তাদের জন্য উদার হবে এবং তাদের প্রতি বিনয়ী হবে।
আল্লাহ আমাদের পালন করার তাওফিক দান করুন।
আর আমাদের সন্তানদের এমন উপদেশ দেওয়ার তাওফিক দান করুন।